গুগল থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য খুঁজে নেবেন যেভাবে – ২য় পর্ব!

Google search tips

আগের পর্বে যেগুলো নিয়ে কথা বলছিলাম সেগুলো হচ্ছে ব্যসিক সার্চ অপারেটর। এছাড়া কিছু অ্যাডভান্সড সার্চ অপারেটর ও আছে যেগুলো সার্চ ফলাফলকে আরো বেশি নির্দিষ্ট করে তোলে। চলুন আজকে দেখে নেওয়া যাক সেগুলো –

অ্যাডভান্সড অপারেটর

  • in – আপনি যদি একক পরিবর্তন করতে  চান তাহলে এ অপারেটরটি ব্যবহার করতে হবে। যেমন: 250 km in mile – এক্ষেত্রে ২৫০ কিমি কে মাইল এককে নিলে কি হবে সেটি দেখাবে। এছাড়া সাধারণ হিসাবের কাজগুলো গুগলের অ্যাড্রেস বারেই করে ফেলা যায়।
  • intitle – এ অপারেটরটি লিখে আপনি যখন সার্চ করবেন, তখন আপনি যে শব্দগুচ্ছ সার্চ করবেন গুগল সেগুলো শুধুমাত্র যেকোন ওয়েব পেজের টাইটেল বা শিরোনামে খুজে দেখবে এবং সে হিসাবে রেজাল্ট দেখাবে। যেমন: ধরুন আমি লিখলাম, intitle:”tesla vs edison” – এক্ষেত্রে গুগল আমাকে ঠিক সেই সব পেজগুলাই দেখাবে যেগুলার টাইটেলে tesla vs edison কথাটি আছে।

যদি কোন পেজের ভিতরের কন্টেন্টে এই ওয়ার্ডগুলি থাকে কিন্তু টাইটেলে না থাকে, তবে সেগুলি আমাদের সামনে আসবে না। এতে করে হয় কি, একদম রিলেভেন্ট পেজগুলা, যেগুলি আমাদের সার্চ করা টপিক নিয়ে লেখা শুধুমাত্র সেগুলিই আমাদের রেজাল্টে আসবে।

  • inurl –  যেকোন ওয়েবসাইটের ঠিকানা হল url. আপনি যখন কোন ওয়েবসাইটে যাবেন, যেয়ে সেটার কোন একটা পেইজে ঢুকবেন, তখন ব্রাউজারের এড্রেস বারে তাকালে যে এড্রেসটি দেখতে পাবেন সেটিই ওই পেইজের url.

এই ছবিটি দেখলে আরো ক্লিয়ার হয়ে যাবেন url দিয়ে আমি কি বোঝাচ্ছি।

এখন আপনি যদি চান যে সাইটের ইউআরএল বা ঠিকানায় আপনার সার্চ করা শব্দগুচ্ছ থাকলে শুধুমাত্র তখনই আপনাকে সেই সাইট যেন শো করানো হয়, তবে আপনি এই অপারেটর ব্যবহার করতে পারেন। যেমন donald trump inurl:whitehouse।

ইউআরএল অপারেটরটি ব্যবহার করার হচ্ছে সাধারণত url এ যেকোন ওয়েবপেজ যে বিষয়ে ফোকাস করে লেখা সেই শব্দটি উল্লেখ থাকে। তো আপনার সার্চ করা শব্দ যখন কোন ওয়েবপেজের url এ থাকবেন, তখন ধরেই নেয়া যায় যে ওই পেজটি আপনি যে টপিকে তথ্য চাচ্ছেন একদম সেই টপিকে লেখা, কাজেই আপনি সহজে অনেক তথ্য পেতে পারেন।

  • intext – এই অপারেটরটি উপরের ‘intitle’ অপারেটরের বিপরীত বলা যায়। এটি ব্যবহার করলে শুধুমাত্র সাইটের টেক্সট বা বডি অংশে সার্চ করা হবে, এবং সেই সব সাইট শো করা হবে যাদের পেজের টেক্সট কন্টেন্টে আপনার উল্লেখিত শব্দগুচ্ছ আছে।
  • filetype – এ অপারেটরটি বেশ কাজের একটি অপারেটর এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । নাম থেকেই হয়চ বুঝতে পারছেন, কোনো নির্দিষ্ট ফরম্যাটের ফাইল খুঁজে পেতে এ অপারেটরটি ব্যবহার করা হয়।

অনেক সময়ই দেখা যায় আমরা কোন একটি টপিকের বা বইয়ের pdf ফাইল খুজছি। কিন্তু সেই কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করলে বইয়ের রাইটার নিয়ে লেখা কোন পেজ বা ওধরনের কিছু আমাদের সামনে আসে যা খুবই বিরক্তিকর। তাই একবারে বইয়ের pdf ফাইলটি খুজে পেতে লিখুন – rich dad poor dad filetype:pdf। এক্ষেত্রে আপনাকে সেই সব সাইট দেখান হবে যেখানে rich dad poor dad বইটির pdf ফাইল আছে।

  • related – মনে করুন আপনি কোন একটি সাইট অনেক পছন্দ করেন এবং সে ধরনের আরো সাই্ট আপনি খুজে পেতে চান। সেক্ষেত্রে যে অপারেটরটি আপনাকে সমধর্মী সাইটগুলো খুঁজে পেতে এ সাহায্য করে সেটি হচ্ছে ‘related’ অপারেটর।। যেমন: related:nytimes.com লিখে সার্চ দিলে আমরা এরকম আরো কিছু কিছু সংবাদ সংস্থার সাইট পাবো।
  • AROUND(#) – দুটি শব্দের মধ্যে নির্দিষ্ট দূরত্ব যদি বেধে দিতে চান সেক্ষেত্রে AROUND(#) অপারেটরটির সাহায্য নিতে পারেন। যেমন: tesla AROUND(3) edison। আপনি এটি লিখলে হলো গুগল দেখবে কোথায় কোথায় tesla এবং edison শব্দ দুটি সর্বোচ্চ তিন শব্দের ব্যবধানে আছে। তবে এই অপারেটরটির ব্যবহার খুব বেশি একটা লক্ষ্যনীয় নয়।

গ. অন্যান্য

আরো কিছু অপারেটর দেখা যায়, কিন্তু সেগুলো খুব একটা বেশি নির্ভরযোগ্য নয়। তাই এই লিস্টটি যথাসম্ভব ছোট রাখার চেষ্টা করছি। কখনো কখনো হয়ত এই অপারেটরগুলোও আপনাদের কাজে লাগতে পারে।

  • ‘~’ – এ অপারেটরটির মাধ্যমে কোনো শব্দের সমার্থক শব্দগুলোকে গুগল সার্চ করে। মনে করুন আপনি football লিখে সার্চ করছেন। কিন্তু অনেক যায়গায় ফুটবলকে soccer নামেও ডাকা হয়।

দেখা গেল আপনি যে আর্টিকেলটি খুজছেন সেটিতে ফুটবল শব্দটির জায়গায় soccer শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে, তাই আপনি football লিখে সার্চ করে সেটি পাচ্ছেন না। সেক্ষেত্রে এই অপারেটর সহ সার্চ করলে গুগল football এবং soccer দুটি কিওয়ার্ড সম্বলিত সার্চ রেজাল্টই আপনাকে দেখাবে।

  • link: গুগলের মাধ্যমে যদি আপনি কোনো নির্দিষ্ট সাইটে সার্চ করতে চান তাহলে এ অপারেটরটি ব্যবহার করুন। মনে করুন, আপনি nytimes.com এ কোন একটি লেখা বা আর্টিকেল পড়েছিলেন যেটি এখন আপনার দরকার।

কিন্তু nytimes.com সাইটটি এতই বড় যে আপনি লেখাটা কোনভাবেই খুজে পাচ্ছেন না। তখন আপনি করবেন কি, আপনি যে আর্টিকেল টি পড়েছিলেন তার টাইটেল সার্চবারে লিখে তারপর লিখবেন link:nytimes.com, তাহলে গুগল nytimes.com এ ওই আর্টিকেলটি খুজে সেটি আপনার সামনে হাজির করবে।

এখন এই যে এতসব অপারেটর রয়েছে, তার যেকোন একটি করে ব্যবহার করে তেমন যুতসই ফলাফল আমরা নাও পেতে পারি। বেশি সংখ্যক অপারেটর একবারে ব্যবহার করে সার্চকে একেবারেই সুনির্দিষ্ট করা হলে গুগল বুঝতে পারে আমরা ঠিক কি চাচ্ছি, এবং তবেই কাঙ্খিত তথ্যটি একবারেই আমাদের সামনে ধরা দেবে। যেমন ধরুণ –

  1. nikola tesla intitle: “top 5..10 facts” -site:youtube.com inurl:2015
  2. site:nytimes.com ~college “test score” -SATs 2015..2017

কোন অপারেটর কী কাজ করছে তা মনে আছে তো? বুঝতে পারছেন তো ভালোমতো? না বুঝলে আরেকবার পড়ে নিন। এ অপারেটরগুলোকে যদি আপনি নিত্যসঙ্গী করে নিতে পারেন তাহলে আপনার গুগলিং আরো বেশি ইফেক্টিভ, টাইম সেভিং এবং মজাদার হয়ে উঠবে।

একাডেমিক রিসার্চ

সাধারণ গুগল সার্চ একাডেমিক রিসার্চের জন্য একদমই উপযুক্ত নয় বলে আমি মনে করি, কারণ অনেক বেশি অপ্রাসংগিক ফলাফল দেখায়। তাই একাডেমিক রিসার্চ, প্রজেক্ট বা যেসব জায়গায় সাইটেশান বা তথ্যসূত্র উল্লেখ করতে হয়, সেশব কাজের জন্য গুগল স্কলার আমাদের কাজটিকে খুবই সহজ করে দেয়।

 

কিছু রিসার্চ পেপার থাকে যেগুলো ফ্রিতে পড়ার সুযোগ থাকে, সেগুলো গুগল স্কলার থেকে খুঁজে নেওয়া যায়। যেমন: Dr. Ronald L. Green এবং Dr. Thomas P. Buttz এর করা ফটোসিনথেসিসের ওপর পেপার খুঁজে পেতে সার্চ করা হলো এভাবে –

এক্ষেত্রে গুগল ফটোসিনথেসিস বিষয়ক যেসব রিসার্চ পেপারের অথর (Author) হিসেবে Dr. green আছেন সেগুলো প্রদর্শন করবে। তার চেয়ে বড় কথা green শব্দটি কোনো সাইটে আছে কি নেই তা এক্ষেত্রে আর গুরুত্বপূর্ণ থাকছে না, কাজেই অপ্রাসংগিক রেজাল্ট আসবে না।

৫. অন্যান্য টিপস

ক. কোনো কিছুর সংজ্ঞা সহজে খুঁজে পেতে চাইলে define: অপারেটর ব্যবহার করুন। যেমন: define:photoelectric effect।

খ. গুগলকে কোনো প্রশ্ন জিজ্ঞেস করার পরিবর্তে যা জানা দরকার সরাসরি সে টপিকটি লিখে এবং উপরে বর্ণিত বিভিন্ন অপারেটর যোগ করা পূর্বক সার্চ দিলে অপেক্ষাকৃত ভাল রেজাল্টস পাবেন।

গ. গুগলের প্রদর্শিত সাইটগুলোর অভ্যন্তরে যেয়ে যদি আপনি কোনো নির্দিষ্ট শব্দ খুঁজে পেতে চান, সেক্ষেত্রে ওই সাইটে গিয়ে ctrl/cmd+F প্রেস করুন। এতে করে একটি পপআপ বক্স ওপেন হবে। সেখানে আপনার কাঙ্খিত শব্দটি লিখে এন্টার করলে ওই সাইটে তা হাইলাইটেড হয়ে যাবে এবং আপনি সহজেই খুজে পাবেন।

 

তো, এই ছিল ইফেক্টিভাবে গুগল সার্চ করার কিছু টিপস এন্ড ট্রিকস। আশা করি এগুলো আপনাদের অনেক হেল্প করবে কাঙ্খিত তথ্য খুজে পেতে। আর্টিকেলটি কেমন লাগল জানাতে ভুলবেন না কিন্তু!

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *