ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে প্রোমোট করার জন্যে ১০ টি দূর্দান্ত টিপস

ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে প্রোমোট করার জন্যে ১০ টি দূর্দান্ত টিপস

আপনার ব্যবসা বা ব্রান্ডকে প্রোমোট করার জন্যে ইন্টারনেটে আপনি প্রায়ই উপায় খোজা হয় নিশ্চই । আর খ্যাতনামা মার্কেটিং সাইটগুলো ঘাঁটতে গেলে একটা কমন উপায় আপনার চোখে পড়ার কথা । সেটা হল –  একটি  ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে অন্য লেভেলে নিয়ে যাওয়া। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে এটিকে অন্যতম ইফেক্টিভ মার্কেটিং স্ট্রেটেজি হিসেবে ধরা যায় ।

কি বিশ্বাস হচ্ছেনা? আসুন হাবস্পটের করা একটা জরিপে চোখ বুলাই । যেখানে দেখতে পাচ্ছেন যে কোম্পানির একটা ব্লগ থাকে তারা ব্লগবিহীন কোম্পানিগুলোর থেকে প্রায় ৫৫%  বেশি ভিজিটর পায় ! blog-business-traffic

প্রায় ৩৭% মার্কেটার মনে করে যে, কন্টেন্ট মার্কেটিং এর সবচেয়ে বড় হাতিয়ার একটা ব্লগ । আর অনলাইন দুনিয়ার বেশিরভাগ সফল ব্যাবসার মালিকগন তাদের ব্লগটিকে কাস্টোমারদের কাছে যাবার অন্যতম মাধ্যম হিসেবেই মনে করেন ।

এ তো গেলো আপনার ব্যবসার কেন একটা ব্লগ থাকা উচিত। কিন্তু, শুধু একটা ব্লগ খুলে রাখলেই কি চলবে! নিশ্চই না। এ জন্যে আপনাকে বেশ কিছু কাজ করতে হবে । এমনি ১০ টি কার্যকরী ও চমৎকার টিপস নিয়েই আজ হাজির হয়েছি। তো শুরু করা যাক ।

ব্লগের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে প্রোমোট করার জন্যে ১০ টি দূর্দান্ত টিপস

#১ – ইনবাউন্ড মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার পণ্যগুলোকে প্রোমোট করা

শুরুতেই ইনবাউন্ড মার্কেটিং কি তা জেনে নেই । আপনার ওবেবসাইট দিয়ে কার্যকরী ও অসাধারন কন্টেন্টের মাধ্যমে আপনার পণ্য বা সার্ভিস গ্রাহকদের কাছে পৌছে দেয়ার নামেই ইনবাউন্ড মার্কেটিং । আর অসম্ভব রকমের ইফিশিয়েন্ট হবার জন্যে এই ইনবাউন্ড মার্কেটিংয়ের জনপ্রিয়তা সারাবিশ্বজুড়ে জ্যামিতিক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে ।inbound-marketing

হাবস্পটের করা উপরের এই জরিপে দেখা যায় , ব্লগ আছে এমন ৭৯% কোম্পানির রিটার্ন অন ইনভেস্টমেন্ট (বিনিয়োগের উপর রিটার্ন) পজেটিভ । যেটা ২০১৩ সালের পরিসংখ্যান । প্রায় অর্ধযুগ পেরিয়ে এখন নিশ্চই এই সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

সেজন্যেই স্বাভাবিকভাবেই, ব্লগিংকে  ইনবাউন্ড মার্কেটিং এর সবচেয়ে কার্যকরী হাতিয়ার হিসেবে বিবেচনা করা হয় । ব্লগের মাধ্যমে আপনি আপনার কাংখিত কাস্টোমারদের জন্যে অসাধারন ও প্রয়োজনীয় কন্টেন্টর  মাধ্যমে সহজেই আপনার পন্য বা সার্ভিস প্রোমট করে ফেলতে পারবেন । আর একটা ব্লগের বিশেষ সুবিধা হল – এখানে আপনি নতুন গ্রাহকের কাছে খুব সহজেই পৌঁছে যেতে পারবেন ।

#২ – ব্লগ পোস্টগুলোতে কিওয়ার্ডয়ের যথাযথ ব্যবহার

আপনি সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন না জানলে অবশ্য এটার কথা আগে নাও জানতে পারেন । তো সহজ ভাষায় বলা যাক । আমরা যখন কোন একটা টপিক নিয়ে আমাদের ব্লগে পোস্ট করি । সে পোস্টে ভিজিটর আসে মূলত  গুগুল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে । কিন্তু , কোন বিষয়ের উপর আপনার আর্টিকেলটি লিখা তা একটা সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে বুঝবে? এটা গুগুল বা অন্য সার্চ ইঞ্জিনকে বোঝাতে গেলে , মানুষ সার্চ করে এমন কিছু টার্ম আপনার পোস্টের টাইটেলে, ইউআরএল-এ, মূল লেখায় ইত্যাদি স্থানে ইঙ্কুড করতে  হবে ।

এখন কথা হল আপনি কি করে জানবেন মানুষ কি লিখে সার্চ করে । এটা জানার জন্যেও গুগুল একটা টুল রেখেছে । এটা হল গুগুল কি-ওয়ার্ড প্ল্যানার

এই টুলের মাধ্যমে আপনি আপনার পোস্টের টপিকের সাথে রিলেভেন্ট  বেশি সার্চ  হওয়া টার্মগুলো জানতে পারবেন এবং সেগুলো দিয়ে আপনার পোস্টকে মডিফাই করে খুব সহজেই অনেক ভিজিটর পেতে পারবেন ।

তবে একটা জিনিস মনে রাখবেন, যাতে পোস্টে খুব বেশী কিওয়ার্ড ইউজ না করে ফেলেন । তাহলে গুগুল আপনার সাইটকে প্যানাল্টিও দিতে পারে । 

#৩ – গ্রাহকদের ইমেইল সংগ্রহ

গ্রাহকদের ইমেইল সংগ্রহ করে আপনি সহজেই যেকোন প্রতিযোগিকে পেছনে ফেলতে পারবেন । কারন ইমেইল হল 1to1 গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ । তাই আপনার ব্লগ ট্রাফিককে কাজে লাগাতে চাইলে ভিজিটরদের ইমেইল লিস্ট সংগ্রহ করার চেয়ে বুদ্ধিদীপ্ত কাজ আর হতে পারেনা।

কিন্তু, আমাদের অনেকেই ইমেইল সংগ্রহ করে গ্রাহকদের শুধু পন্য বা সার্ভিস নিয়েই মেইল করি । এত করে লাভের চেয়ে লসের সম্ভাবনাই বেশি । আপনাকে অবশ্যই ইমেইলের মাধ্যমে ভ্যালু প্রোভাইড করতে হবে । নইলে আপনার ইমেইল কদিন পরে গ্রাহকের বিরক্তির ফলে স্পাম ফোল্ডারে যায়গা করে নিবে। যেটা আপনার সুনামের জন্যেও বেশ হুমকিস্বরুপ । তাই মনে রাখবেন ‘ভ্যালু ফার্স্ট’ ।

এই লিঙ্কের গাইডটি ফলো করে সহজেই ইমেইল লিস্ট তৈরি থেকে শুরু করে তা কাজে লাগানোর সব উপায় জেনে নিতে পারবেন ।

#৪ –চমতামত নেয়া

গ্রাহকদের কাছে টানার জন্যে এটি আরেকটি কার্যকরী উপায়। আপনি আপনার ব্লগে ভিজিটর দের কাছে জানতে চাইবেন তারা আপনার পন্য বা সার্ভিস নিয়ে কি ভাবছে । কারন যেকোন প্রকার মতামত, রিভিউ, মন্তব্য ও উৎসাহ আপনার বিজন্যাসকে অন্য লেভেলে নিয়ে যেতে পারে । কারন , আপনি আপনার ব্যবসা নিয়ে কি ভাবছেন তা আসল কথানা, বরং আপনার গ্রাহকগন আপনার ব্যবসাকে কিভাবে নিচ্ছেন তার উপরেই আপনার সফলতা নির্ভর করবে ।

opinion-stage

এ জন্যে আপনি কুইজ , সার্ভে বা ভোট দেয়ার ব্যবস্থা করতে পারেন । আর ফেরত পাওয়া সব ফিডব্যাকগুলো যাচাই করুন । পজিটিভগুলো উৎসাহ দিবে আর নেগটিভগুলো দেখিয়ে দিবে আপনার ডেভলাপমেন্টের জায়গা ।

এ জন্যে আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে Opinion Stage  নামের এই প্লাগিনটি ইউজ করতে পারেন ।

#৫ –বৃত্তের বাইরে চিন্তা করেন

ট্রিপ ইট  এর কথাই ধরুন না , এখানে তারা ভিজিটরদের তাদের অফিসের ভিতকার এক ছবি দিয়ে সহজেই নিজেদের আরো বিশ্বাসযোগ্য করে তুলেছে । অনলাইনে তো আজকাল বেনামা সাইটের অভাব নেই । তাই এই তুখোড় প্রতিযোগিতায় নিজেকে টিকিয়ে রাখতে চাইলে এমন চমৎকার কিছু ভিজিটরদের দেখাতে পারেন ।

tripit-inside-office

আর তাই আজিই আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগে আমরা ব্রান্ডের ইন্টার্নাল ইন্টেরিওয়রের ছবি, আপনার টিমের ছবি, আপনাদের পোর্টফলিও আর পণ্য/সেবার ফিডব্যাক ইত্যাদি ইনক্লুড করে সহজেই আরো বেশি বিশ্বস্থ হয়ে উঠতে পারেন ।

#৬- আপনার ব্যবসার ফিল্ডের খ্যাতনামা লোকজনের সাথে সম্পর্ক করুন

প্রতিটা বিজন্যাস ফিল্ডে কিছু আইকনিক মানুষ থাকে। আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করুন আর ভাল সম্পর্ক গড়ে তুলুন।

আর যখন একটা ভাল পারস্পারিক সম্পর্ক হয়ে যাবে। আপনি তাদেরকে আপনার ব্লগে লিখতে রিকুয়েস্ট করেন বা তাদের সাথে যৌথভাবে কোন কাজ করেন। এবং আপনার ব্লগে পোস্ট করেন। এটা তাদের জন্যে অল্প কিছু হলেও আপনার ব্রান্ডের জন্যে নি:সন্দেহে বিশাল কিছু।

এতে করে আপনার ব্রান্ড ভ্যালু তো বাড়বেই। তাছাড়া আপনার অপরচুনিটিরর স্বর্গদ্বার খুলে যাবে এমন বড় বড় মানুষগুলার সাথে কাজ করে। আর তাদের ফলোয়ারগনও আপনার সাইটের ভক্ত হয়ে বিশাল এক সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দিবে আপনার জন্যে।

#৭- আপনার জাদুকরী শক্তি দেখিয়ে দিন!

আপনি আপনার ব্লগে কিছু পাব্লিশ করার আগে হালকা পাতলা রিসার্চ করে নিন। আগেই দেখে নিন আপনার প্রতিযোগীরা তাদের সাইটে কি ধরনের কন্টেন্ট দিচ্ছে।

সবার কার্যক্রম আপনি একটা নোটে লিখে নিন। এবার সবার কাজের সম্মিলনে এমন কিছু করুন যা সবাইকে তাক লাগিয়ে দেয়। যেন আপনি কোন কম্পিটিটর থেকে পিছিয়ে না থাকেন

বি বেটার এন্ড দেন বিট!

#৮- ইনফোগ্রাফিক পাব্লিশ করুন

পৃথিবীতে মানুষ যতই ব্যাস্ত হয়ে পড়ছে তাদের লেখা পড়ার সময় আর আগ্রহ ততই কমছে। সবাই পিকচার বা ভিজুয়াল কন্টেন্টের দিকেই ঝুঁকছে।

pictochart

কারন কম সময়ে সব জানা গেলে এত সময় নষ্ট করে বড় বড় আর্টিকেল পড়ার মানেই হয়না। আর তাই এক্ষেত্রে ইনফোগ্রাফিকের চেয়ে আর বেশি ফলপ্রসূ কিছুই হতে পারেনা।

আপনার কন্টেন্টগুলো দিয়ে দৃষ্টিনন্দন ভিজুয়াল কন্টেন্ট তৈরী করুন। ভিজিটর বেড়ে যাবে দ্বিগুন।

কথা হল, এ জন্যে আপনার ভাল ডিজাইন স্কিল থাকা চাই, আপনি এজন্যে ফাইবার থেকে কম দামে ভাল কাউকে খুজে নিন অথবা এই সাইট থেকে সময় নিয়ে ডিজাইন করে নিন ইনফোগ্রাফ।

#৯-আপনারর কন্টেটেরো প্রমোশন করেন

 

আপনি আপনার ব্লগে অসাধারন সব কন্টেন্ট পাব্লিশ করে বসে রইলেন, তাহলে কিন্তু হবেনা। আপনার কন্টেন্টের প্রোমোশন না হলে আপনার ভিজিটররা জানবে কি করে আপনার সাইটে কি কি আছে। তাই পন্যের বিজ্ঞাপনের মতই কন্টেন্টেরও মার্কেটিং করা লাগবে।

তো সেটা কিভাবে করা যায়? খুব সোজা! আপনার আপনার সাইট রিলেভেন্ট সোশ্যাল মিডিয়া কমিউনিটিতে/ গ্রুপগুলোতে আপনার পোস্টগুলো শেয়ার করেন। যেমন -ফেসবুক গ্রুপ বা ইউটিউব কমেন্ট ইত্যাদি।

#১০-আপনার ব্লগটিকে স্লাইডে পরিনত করুন

সবশেষে যে টিপসটি থাকছে সেটা বেশ সিম্পল কিন্তু, খুব কাজে দিবে। আপনি আপনার সাইটের গুরুত্বপূর্ন পোস্টগুলো থেকে ইনফরমেশন নিয়ে স্লাইড বা পিকচার বানার, আর তাতে একপাশে আপনার সাইটের লগো দিন! ব্যাস যেখানেই এখন আপনার কন্টেন্ট থাকবে, আপনার ব্রান্ড ভ্যালু বাড়তেই থাকবে।

slideshare

আর পিন্টারেস্ট ও স্লাইডশেয়ারের মত সাইটগুলোতে (যেখানে ভিজুয়াল কন্টেন্ট পাব্লিশ হয়) মিলিয়ন মিলিয়ন ব্যবসা রিলেভেন্ট ভিজিটর পাবেন। আর তাছাড়া ফেসবুক তো আছেই।

 

তো এই ছিল আপনারর ব্যবসার জন্যে HostBangla-এর অত্যন্ত কার্যকরী ও দূর্দান্ত ১০ টিপস। আশা করি এগুলো আপনার ব্যবসাকে গ্রো করতে সাহায্য করবে।

তো আর দেরী কেন আজেই আমাদের হোস্টিং প্যাকেজগুলো থেকে একটি চমৎকার প্যাকেজ নিয়ে চালু করে দিন আপনার ব্লগ,স্বপ্ন পূরনে আরেকধাপ এগিয়ে যান ।

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.